জলপাইগুড়ির মন্দিরে সারাবছরই পুজো পান নেতাজি

জলপাইগুড়ি: জলপাইগুড়ি শহরের মাশকলাইবাড়ি এলাকার একটি হনুমান মন্দিরে বিভিন্ন দেবদেবীর সঙ্গে পূজিত হন দেশনায়ক সুভাষচন্দ্র বসু। গত ৫০ বছরেরও বেশি সময় ধরে চলে আসা এই রীতি আজও অটুট রয়েছে এই মন্দিরে। স্থানীয় সুত্রে জানা গিয়েছে, ১৯৬৬ সালে জলপাইগুড়ি মাশকলাইবাড়ি শ্মশান সংলগ্ন এলাকায় এসেছিলেন এক সাধু। প্রথমে একটি মন্দির নির্মান করেন তিনি। মন্দিরের পাশেই একটি ঘড় করে থাকতেন ওই সাধু। তার হাত ধরে এই হনুমান মন্দির স্থাপিত হয় এবং অন্যান্য দেবদেবীর সাথে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর মূর্তি বসিয়ে বছরভর পূজো করতেন। সেই নিয়ম আজও বহাল রয়েছে। মন্দিরের পুরোহিত অর্জুন দাস বলেন, এই মন্দিরে সারাবছরই দেবদেবীর সাথে নেতাজির পূজো দেওয়া হয়। প্রতিদিন মানুষ এসে এখানে পূজো দেয়। ২৩ জানুয়ারি উনার জন্মদিনে প্রচুর পরিমানে মানুষ আসেন। নতুন গাড়ি কিনে মন্দিরে পুজো দিতে এসেছিলেন জলপাইগুড়ি বাসিন্দা শুক্লা রায়। তিনি জানালেন, হনুমান মন্দিরে নেতাজির পূজো হয় দেখে খুব ভালো লাগলো।’ জলপাইগুড়ি নেতাজী সুভাসচন্দ্র বোস ফাউন্ডেশনের সম্পাদক গোবিন্দ রায় বলেন, ‘নেতাজিকে দেশের বিভিন্ন প্রান্তের মানুষ ঈশ্বর জ্ঞানে পুজো করেন। কিন্তু রাজ্যে বিরল এই মন্দির। এখানে ৩৬৫ দিনই পূজো পান নেতাজি। মানুষের এই ভাবাবেগকে সম্মান জানাতেই হবে।’