চিনের হামলায় শহীদ অন্তত ২০ ভারতীয় জওয়ান: সূত্র

নয়াদিল্লি: লাদাখের গালোয়ান উপত্যকায় ভারত-চিন সেনার সংঘর্ষে শহীদ হয়েছেন অন্তত ২০ ভারতীয় জওয়ান বলে সূত্রের খবর। ভারতীয় ফৌজের পালটা হামলায় খতম হয়েছে ৪৩ চিনা সৈনিক। এএনআই সংস্থার প্রতিবেদনে এমনই দাবি করা হয়েছে। সরকারি সূত্রে জানা যাচ্ছে হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।

সোমবার রাতে গালোয়ান উপত্যকায় ভারতীয় সেনার উপর আক্রমণ চালায় চিনা সেনা। সেনা সূত্রে খবর, ভারতীয় সেনা যখন চিনা সেনার অবৈধ অস্থায়ী নির্মাণ সরাতে যায় তখন দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। গোলাগুলি নয়, পাথর, রড নিয়ে হামলা চালায় চিনের জওয়ানরা। পাল্টা জবাব দেয় ভারতীয় সেনাও। চিনের সংবাদমাধ্যমের তরফে দাবি করা হয়েছে, তাদের ৫ জওয়ান নিহত হয়েছে এই সংঘর্ষে। তবে চিনের তরফে সরকারিভাবে কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

প্রথমে খবর ছিল এই সংঘর্ষে শহীদ হয়েছেন ভারতীয় সেনার এক আধিকারিক ও ২ জওয়ান। এরপরই চিফ অফ ডিফেন্স স্টাফ জেনারেল বিপিন রাওয়াত, স্থল,বায়ু,নৌ সেনার প্রধানদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। প্রধানমন্ত্রীকেও সম্পূর্ণ ঘটনা জানানো হয়। বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করেন রাজনাথ সিং।

বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তাব বলেন, ‘সীমান্তের নিয়ম অনুযায়ী এলএসির ভেতরেই রয়েছে ভারত। আমাদের আশা চিনও সেটাই করবে। ভারত চায় এলাকায় শান্তি ও সুস্থিতি বজায় রাখতে। যে সমস্যা রয়েছে তা আলোচনার মধ্যমে মিটিয়ে ফেলা হবে। পাশাপাশি, ভারতের সার্বভৌমত্বের সঙ্গে আপোস করা হবে না।’

বেশ কিছুদিন ধরেই লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় দু দেশের মধ্যে উত্তেজনা তৈরি হয়েছে। এবিষয়ে দু দেশের কমান্ডার পর্যায়ের বৈঠকেও হয়। বৈঠকে ঠিক হয়, শান্তিপূর্ণ উপায়ে আলোচনার মাধ্যমে সমস্যার সমাধান করে নেওয়া হবে। দু দেশের মধ্যে বৈঠকের পর ঠিক হয়েছিল উভয় পক্ষই ২ কিলোমিটার করে পিছিয়ে যাবে। কিন্তু এই ঘটনা কূটনৈতিক সমস্ত প্রচেষ্টার ওপর আঘাত হানলো।

সোমবার সকালে ভারত ও চিনের মধ্যে ব্রিগেডিয়ার পর্যায়ে বৈঠক হয়। তরপর রাতে ওই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।