রান্নার ভিডিও বানিয়ে দুই বাংলার মন জিতেছেন ৮২ বছরের ইউটিউব তারকা

ইউটিউবে যারা বাঙালি রান্নার ভিডিও দেখতে পছন্দ করেন, তাদের কাছে একজন জনপ্রিয় মুখ এই ঠাকুমা। ৮২ বছরের বৃদ্ধা ঠাকুমা পুষ্পরানি সরকারের ইউটিউব চ্যানেলে রয়েছে বাংলার নানান খাবার তৈরির ভিডিও। তাঁর রান্নার জনপ্রিয়তা দুই বাংলা ছাড়িয়ে পৌঁছেছে গোটা বিশ্ব দরবারে। এমনকী, চিনের মানুষও ফলো করেন তাঁর ইউটিউব চ্যানেলটি।

‘ভিলফুড’ নামের একটি চ্যানেলে গেলেই দেখা মিলবে ঠাকুমা ও তাঁর পরিবারের। সহজ সরল বাংলা গ্রামের দৈনন্দিন জীবনের সহজ সরল উপস্থাপনা। ২০১৭ সালে পুষ্পরানির নাতি সুদীপ সরকার খুলেছিলেন এই ইউটিউব চ্যানেল। আর প্রথম যে ভিডিও পোস্ট করা হয়েছিল তাতে রান্না করা হয়েছিল কুমড়োফুলের বড়া। খড়ের ছাউনি দিয়ে ঘেরা রান্নাঘরে, শীল-নোড়ায় পেষা মশলা আর বাগানের সবজি, নিজের পুকুরের মাছ দিয়ে রান্না করেন তিনি। ইলিশ থেকে কাতলা, থানকুনি পাতা থেকে কুমরো শাক, লাউ শাক, ডিম-মাংসের নানা পদ বানানোর আগে চোখ রাখতে পারেন এই দেশি ঠাকুমার রান্নাঘরে। নিজের মুখরোচক স্বাদের রান্নায় তিনি এখন পেয়েছেন ইউটিউব স্টারের তকমা।

পুষ্পরানি এবং তাঁর বউমা দুজনে মিলে মিশে রান্না করেন। বাংলার নানা হারিয়ে যাওয়া রান্না ফুটে ওঠে তাদের চ্যানেলে। বীরভূমের ইলামবাজারে বনভিলার বাসিন্দা, সাদা শাড়ির এই ছাপোষা মহিলাই মন জয় করেছেন নেটিজেনদের। বর্তমানে ইউটিউবে তাঁর ফলোয়ার্সের সংখ্যা ১.৫৫ মিলিয়ান। ইউটিউব সংস্থা ২০২০ সালে তাঁর চ্যানেল ভিলফুড ব্লগকে দিয়েছে গোল্ড প্লে সম্মান। এর থেকে বছরে ৮-১০ লক্ষ টাকা আয় করে এই পরিবার। ভারতের সঙ্গে সঙ্গে বাংলাদেশ, চিন, আফ্রিকা, তুরস্ক, ইংল্যান্ড, আমেরিকার বাসিন্দারাও ফলোও করেন তাঁদের ইউটিউব চ্যানেল।